মেনু নির্বাচন করুন

ওফিং হিল

অফিং হিলের অর্থ হলো নানা রকমের সৌন্দর্যের সমাহার যা সেখান থেকে অনেক রকমের উপভোগ করা যায়। চমৎকার একটি জায়গা অফিং হিল , মনে হবে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে যেন পৌঁছে গেছেন । আর একটু এগুলেই পাহাড়ের ভিতরে পাবেন একটি লেক । শাপলা , জলপদ্মে ভরা লেকটির এক পাশ থেকে অপর পাশে দেখবেন শত শত পাকৌঁড়ি আর সরালী ভাসছে । লেকটি এঁকে - বেঁকে অনেক দূরে চলে গেছে । একটু দূর বিধায় এ লেকে পর্যটকদের ভীর হয় কম । লেকটির কাছে গেলে মনে হবে এটিকে যেন আপনিই আবিষ্কার করেছেন । এখানে আপনা আপনিই কেটে যাবে বেশ কিছুটা সময় । এবার ডান দিকে রাবার বাগানের নিচ দিয়ে দেখবেন খুব সুন্দর একটা ঢালু রাস্তা চলে গেছে ,মন চাইবে ঐ রাস্তায় যেতে মনকে কষ্ট দেওয়া ঠিক না । ঐ রাস্তা ধরেই এগুতে থাকুন । এক সময দেখবেন আপনি উপর দিকে উঠছেন । কতোটুকু উপরে উঠলেন তা বুঝতে হলে বাম দিকে তাকান ভয়ের কোনো কারণ নেই আপনি প্রসস্ত টিলার রাস্তায় অবস্থান করছেন । সেখানে থেকে দেখবেন অসংখ্য ছোটুবড়ো পাহাড় যেন গভীর নিদ্রায় নিমজ্জিত । আপনার মনে হবে হয়তো আকাশের দিকে উঠে যাচ্ছেন । যতোই উপরে উঠবেন সৌন্দর্য কেবল বাড়তেই থাকবে । উঠে আসুন একেবারে চূড়ান্ত চারিদিকে দৃষ্টিনিবদ্ধ করুন , বাইনোকুলার থাকলে লাগিয়ে নিন চোখে দেখবেন হাজার রকমের সৌন্দর্য আপনার দৃষ্টি সীমানায় এসে ভিড় জমাবে । স্থির হয়ে থাকবে আপনার দৃষ্টি । মনে হবে কোনো স্বপ্নপুরী কিংবা জাদুর রাজ্যে আপনি অবস্থান করছেন। 

কিভাবে যাওয়া যায়:

 শ্রীমঙ্গল শহর থেকে প্রথমে কালীঘাট চা বাগানে পৌছান । সেখান থেকে হাতের বাম দিকে ইট বিছানো রাস্তায় এগিয়ে যান । চা বাগান আর রাবার বাগানের মাঝ দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে ২০ মিনিটের মধ্যে পেয়ে যাবেন হুসনাবাদ চা বাগান । ইচ্ছা করলে গাড়িও নিতে পারেন , সেখান থেকে পায়ে হেঁটে আগর বাগানের দিকে এগিয়ে যান আগরের বাগান পেরুলেই দেখতে পাবেন অফিং হিলের । 


Share with :

Facebook Twitter